Wednesday, December 2, 2020

ফুডপান্ডার মাধ্যমে কী খাচ্ছেন বাংলাদেশের অভিজাত পরিবারের সদস্যরা?

জনপ্রিয়

বগুড়ায় সম্রাট শাজাহানের সেই ছাউনির কী অবস্থা

বগুড়া শহর থেকে ১০ কিলোমিটার দক্ষিণে শাজাহানপুর উপজেলা। এই উপজেলার সাজাপুর গ্রামে সম্রাট শাহজাহানের সেনা ছাউনি অবস্থিত।

সন্তানের পিতৃ পরিচয়ের দাবীতে দারে দারে ঘুরছে অন্তঃসত্তা তানিয়া

তার প্রশ্ন আমি এখন কী করব, আমি কি সন্তানের বাবার পরিচয় দিতে পারব না...

স্কুলছাত্রীর চিৎকার ঠেকাতে মাথায় পিস্তল ধরেন ছাত্রলীগ নেতা!

ধর্ষণের ঘটনার ৩৬ দিন পর শুক্রবার দুপুরে ভৈরব থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়...

রাতে ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করতেন শাহমখদুম মেডিকেলের এমডি

রাতে বিনা নোটিশে মেয়েদের কক্ষে ঢুকে যৌন হয়রানি করত প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্বাধীন...

খোরশেদ আলম

দক্ষিণ ভারতে ঐতিহ্যবাহী খাবারের নাম ‘দোসা’। বগুড়ায় এ খাবার তৈরি হচ্ছে ফুটপাতে। ফুটপাতে তৈরি দোসা শহরের অভিজাত পরিবারের সদস্যদের খাওয়ানো হচ্ছে। ভোক্তারা জানতেই পারছেন না এই দোসা কোথায় তৈরি হচ্ছে? অথচ অনলাইনে দোসার ও রেস্টেুরেন্টের চমকপদ ছবি ব্যবহার করেছেন খাবার পরিবহনকারী প্রতিষ্ঠান ফুডপান্ডা। ফুটপাতের এসব ভাসমান দোকানের সঙ্গে চুক্তি করে কৌশলে এসব অস্বাস্থ্যকর খাবারও সরবরাহ করছে তারা।

বগুড়ায় রয়েছে ‘ইন্ডিয়ান দোসা এক্সপ্রেস’। এই দোসা এক্সপ্রেসের মালিক মো. শাকিল আহম্মেদ। এক্সপ্রেস নামেরও যথাযোগ্য মর্যাদা রক্ষা করেছেন শাকিল। কারণ ভ্যানের উপরই শাকিলের ‘ইন্ডিয়ান দোসা এক্সপ্রেস’ ফুটপাতে দাঁড় করিয়েছেন তিনি। ধুলোবালির মধ্যেই বগুড়ার শহরের শহীদ খোকন পৌর পার্কের সামনে দোসা তৈরি করেন তিনি। এই দোসা ফুডপান্ডার মাধ্যমে শহরের বিভিন্ন পরিবারের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়।

কেবল তাই নয়, ফুটপাতে চিকেন কাবাব, বার্গার, স্যান্ডউইচ, চিকেন ফ্রাই, ভেজিটেবল রোল, সাশলিকসহ অভিজাত রেস্টুরেন্টের খাবার তৈরি হচ্ছে। ফুডপান্ডা এসব ভাসমান এমন অসংখ্য দোকানের সঙ্গে চুক্তি করে খাবারগুলো কৌশলে ভোক্তাদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে।

তবে আন্তর্জাতিক খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ফুডপান্ডা ফুটপাতের দোকানের সাথে চুক্তি করে অস্বাস্থ্যকর খাবার পৌঁছে দেওয়ার বিষয়ে কোনো বক্তব্য দিতে নারাজ।

শহরের পুলিশ প্লাজার সামনে ফুটপাতে সেলফি ক্যাফের সঙ্গে ফুডপান্ডা চুক্তি করেছে খাবার সহবরাহের জন্য। ফুডপান্ডার মাধ্যমে তিনি প্রায় বছরখানেক ধরে ব্যবসা করছেন। তবে তিনি ফুডপান্ডার অনলাইনে তার দোকানের খাবারের কোনো ছবি দেওয়া আছে কিনা তা তিনি জানেন না। ভ্যানের উপরে স্থাপিত সেলফি ক্যাফের মালিক জুয়েল হোসেন জানান, ফুডপান্ডার মাধ্যমে এক বছরে তিনি ব্যাপক ব্যবসা করেছেন।

তার পাশেই সার্কিট হাউসের দেয়াল ঘেঁষে ভ্যান নিয়ে দাঁড়িয়ে ব্যবসা করেন আবু তাহের। তার দোকানের নাম তানিয়া চটপটি ও ফুচকা। ভ্যানের গায়ে ফুডপান্ডার চুক্তিনামা সাটিয়ে রেখেছেন তিনি। ভ্যানের উপর রেখেছেন ফুডপান্ডার দেওয়া ট্যাব। এই ট্যাবের মাধ্যমে তার কাছে খাবারের অর্ডার আসে। নির্দিষ্ট সময় পর ফুডপান্ডার সহবরাহকারী এসে খাবার নিয়ে যান। আবু তাহের বলেন, নতুন ব্যবসার ধারনা এটি। অনেকে ফুডপান্ডার মাধ্যমে একদিনেই ৫০০ থেকে ৭০০ টাকার অর্ডার করেন।

সাতমাথায় ফুটপাতের দোকানের সাথে চুক্তি করেছে ফুডপান্ডা। সম্প্রতি তোলা। ছবি- মামুনুর রশিদ। 

একই সড়কে ভ্যানের উপরে স্থাপিত মেঘলা চটপটি ফুডপান্ডার সাথে ব্যবসা করছে এক বছর ধরে। তার পাশে খোকন পার্কের প্রধান ফটকে রাব্বীর মা-বাবার দোয়া চটপটিও ফুডপান্ডার আওতায়। ভ্যানের উপরে দোকান সাজিয়ে রজনীগন্ধা চটপটির ব্যবসা করছেন বেলাল হোসেন। তিনি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ফুডপান্ডার সাথে।

শহরের সাতমাথায় স্বাগতম নামের দোকানে বাহারি নামের ফ্রাই, বার্গার, রোল বিক্রয় করা হয়। বিকেল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে জমজমাট ব্যবসা করা এসব দোকানে খাবারের উপর প্রায় ধুলোবালির আস্তরণ পড়ে থাকে। অথচ এসব দোকানের সাথেও ফুডপান্ডা তাদের ব্যবসায়ীক চুক্তি করেছে। আর ফুডপান্ডার ওয়েবসাইটে এই দোকানের নাম করে খাবারের চোখ ধাঁধানো ছবি ব্যবহার করেছে। ভ্যানের উপর গড়ে তেলা স্বাগতম দোকানের মালিক বিদ্যুৎ জানান, ফুডপান্ডা বগুড়ায় আসার পর থেকেই আমাদের সাথে চুক্তি করেছে। প্রতিদিন শত শত টাকার ফ্রাই, বার্গার বিক্রি হয় ফুডপান্ডার মাধ্যমে। তবে ফুডপান্ডার ওয়েবসাইটে তার দোকানের খাবারের ছবি দেখালে তিনি নিজেও চিনতে পারেন না। আশ্চর্য হয়ে বিদুৎ প্রশ্ন করেন, ‘কই থেকে এতো সুন্দর ছবি পাইলো?’

সন্ধ্যার পর শহরের সাতমাথা যেনো জনগণের আড্ডার একমাত্র জায়গা হয়ে দাঁড়ায়। ঠিক এই সময়ে এখানে জড়ো হওয়ার মানুষদের জন্য গড়ে ওঠে ভাসমান দোকান। এসব দোকানে হরেক রকমের বার্গার, স্যান্ডউইচ, চিকেন ফ্রাই তৈরি করা হয়। এসব দোকানের মধ্যে রয়েছে বগুড়ার স্পেশাল চটপটি, মামা ভাগ্নে রেস্টুরেন্টসহ আরও অনেক।

বগুড়ার কলোনী এলাকার গৃহবধূ মহসিনা আক্তার লোপা। সম্প্রতি তিনি ফুডপান্ডা থেকে দোসা অর্ডার করেছিলেন ফুডপান্ডার অ্যাপসে ছবি দেখে। কিন্তু খাবার খাওয়ার সপ্তাহখানেক পরে লোপা দেখেন চমক দেখানো সেই দোসার দোকান ফুটপাতে। তিনি বলেন, এভাবে অ্যাপসে আকর্ষণীয় ছবি দিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের খাবার বিক্রি করা ভোক্তাদের সাথে প্রতারণা করা। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

গোলাম মোস্তফা বগুড়ার একটি সরকারি কলেজে খণ্ডকালীন শিক্ষকতা করছেন। তিনি প্রায়ই ফুডপান্ডা অ্যাপসের মাধ্যমে খাবার কেনেন। মোবাইলে কথা হয় এই শিক্ষকের সাথে। মোস্তফা জানান, ফুডপান্ডা অ্যাপসে আকর্ষণীয় ছবি ব্যবহার করা হয়। কিন্তু খাবারের সাথে এর কোনো মিল নেই। বিজ্ঞাপনের জন্য ফুডপান্ডা ইন্টারনেট থেকে ছবি ডাউনলোড করে অ্যাপসে ব্যবহার করে ভোক্তাদের ক্রমাগত ঠকিয়ে যাচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, ‘রাস্তাঘাটের রেস্টুরেন্টে আকর্ষণীয় নামে দোকান খুলে বসে আছে। এদের সাথে ফুডপান্ডা চুক্তি করে অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়াচ্ছে। অনেকে ফুডপান্ডা অ্যাপসের মাধ্যমে চমকপদ নামের রেস্টুরেন্টের খাবার অর্ডার করেন। কিন্তু পরে দেখেন রাস্তার উপরের হোটেল এটি! এমন ঘটনা আমার সাথেও হয়েছে।’

বগুড়া আজিজুল হক কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম, মশিউরসহ অন্তত ১৫ জন শিক্ষার্থী জানান, ফুডপান্ডা সাতমাথার অনেক নোংরা হোটেলের সাথে চুক্তি করে কৌশলে অস্বাস্থ্যকর খারাপ খাওয়াচ্ছে। এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।

এসব দোকানের খাবারের চকমপদ ছবি ব্যবহার করে ভোক্তাদের অস্বাস্থ্যকর খাবার সরবরাহ সম্পর্কে জানতে চাইলে বগুড়ার ভোক্তা অধিকারের সহকারি পরিচালক দেবাশীর রায় জয়যুগান্তরকে বলেন, ‘ভোক্তাকে খাবার দিলে সে বিষয়ে ফুডপান্ডার স্বচ্ছতা থাকতে হবে। কোনো অনিয়ম হলে বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ খবর নেওয়া হবে।’

বাংলাদেশ ভোক্তা সমিতি (ক্যাব) বগুড়া জেলার সভাপিত মাহফুজ আরা মিভা জয়যুগান্তরকে বলেন, ‘বিদেশি স্বনামধন্য কোম্পানি ফুডপান্ডা কীভাবে ফুটপাতের দোকানের সাথে চুক্তি করে? এরা স্পষ্টভাবে আমাদের দেশের মানুষের সাথে প্রতারণা করছে। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’

রাস্তার এসব খাবার কতোটা স্বাস্থ্যসম্মত কিনা এ সম্পর্কে জানতে চাইলে ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন মোস্তাফিজুর রহমান তুহীন বলেন, ফুটপাতে এসব দোকানে খাবার তৈরিতে মবিলের মতো পোড়া তেল ব্যবহার করা হয়। ফুটপাতে সম্পূর্ণ খোলা পরিবেশে খাবার তৈরি করে বিক্রি করে তারা। এতে বাহিরের রোগ জীবানু সহজে খাবারের মধ্যে ঢুকছে। এর ফলে এসব খাবার খেলে ডাইরিয়া, আমাশয়সহ বিভিন্ন রোগ হতে পারে। এমনকি রাস্তার অস্বাস্থ্যকর এসব খাবারের কারণে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

ফুডপান্ডার সাথে চুক্তি ও খাবার বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি বগুড়ার সিটি ব্যবস্থাপক তানভীর। এসব বিষয়ে কথা বলার জন্য তিনি ঢাকায় যোগাযোগ করতে বলেন। পরে ফুডপান্ডার বাংলাদেশি সিইও আম্বারিন রেজা তাদের পাবলিক রিলেশন শাখায় যোগাযোগ করতে বলেন।

তার কথামত ফুডপান্ডার গণমাধ্যম শাখায় গত ২৯ আগস্ট মেইলে কয়েকটি প্রশ্ন পাঠানো হয়। সেখানে একটি প্রশ্ন ছিল, ‘ফুডপান্ডার ওয়েবসাইটে পুটপাতের হোটেলগুলোর খাবারের ছবিও দেওয়া হয়েছে অভিজাত রেস্টুরেন্টের ছবির মতো। কিন্তু খাবার দেওয়া হচ্ছে ফুটপাত থেকে। এসব রেস্টুরেন্টের অবস্থান, যথাযথ ঠিকানা ভোক্তারা জানেন কিনা?’

তবে সেই প্রশ্নেরও উত্তর দিতে রাজি হয়নি ফুডপান্ডার চুক্তিভিত্তিক পাবলিক রিলেশন প্রতিষ্ঠান কনসিটোর কর্মকর্তা জিলফুল মুরাদ সানু।

- Advertisement -

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -

সর্বশেষ

গোপনে কিম ও তার পরিবারকে ‘চীনের ভ্যাকসিন প্রয়োগ’ নিয়ে জল্পনা

এই তালিকায় রয়েছে ব্রিটিশ ড্রাগমেকার অ্যাস্ট্রাজেনেকাও। এই পরিস্থিতিতে কিম জং উনের ভ্যাকসিনেশন ঘিরে নতুন জল্পনা তৈরি হয়েছে! 

মাত্র ৫ বছর বয়সে মা হয়েছিলেন লিনা, চিকিৎসা বিজ্ঞান আজও খুঁজছে উত্তর

ডাক্তারদের কাছে শুধু বিস্ময়কর নয়, অসম্ভব ছিল। চিকিৎসা বিজ্ঞান বিশেষজ্ঞরা আজও লিনার মাতৃত্বের ধাঁধার উত্তর খুঁজে পাননি।

করোনায় যাদের কপাল খুলেছে, গড়ছেন টাকার পাহাড়

ডেস্ক রিপোর্ট করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বের কোটি কোটি  মানুষ মহাসংকটে। তবে এই পরিস্থিতিতেও কেউ হয়েছেন বিলিয়নিয়ার, আবার কেউ এগিয়ে চলেছেন বিলিয়নিয়ার থেকে ট্রিলিয়নিয়ার হওয়ার পথে। তাদের...

২০ মাত্রার ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের বাধ্যবাধকতা রেখে ইরানে আইন পাস

করে তাহলে এই আইন পাসের একমাসের মধ্যে পরমাণু ক্ষেত্রে স্বেচ্ছাপ্রণোদিত সব প্রটোকল বাস্তবায়ন থেকে সরে আসতে হবে।

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হচ্ছে ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড় ‘বুরেভি’!

শেষ রাত থেকে ভোর পর্যন্ত সারাদেশের কোথাও কোথাও হালকা কুয়াশা পড়তে পারে।